Breaking

Monday, April 12, 2021

ফরিদপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হত্যা চেষ্টা; ঘাতক ধরাছোঁয়ার বাইরে



নাজমুল হাসান নিরব,ফরিদপুর প্রতিনিধি :


ফরিদপুরের মধুখালীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চার ভাই ও পিতার বিরুদ্ধে হত্যা চেষ্টার মামলা করা হয়েছি। কিন্তু মামলার ১৪ দিনের মাথায়ও আসামি রয়ে গেছে ধরাছোঁয়ার বাইরে।


এ ব্যাপারে মঙ্গলবার(১৩ এপ্রিল) মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মধুখালী থানার এসআই শাহরিয়ার  বলেন, আসামীরা এলাকায় না থাকায় তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না তবে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত আছে।




লিখিত অভিযোগ হতে জানা যায় রায়পুর ইউনিয়নের হাটঘাটা গ্রামের রোকনুজ্জামান (৫০) চাষাবাদের জন্য ট্রাক্টর ভাড়া দিয়ে থাকেন। গত ৩১ মার্চ বেলা অনুমানিক পৌঁনে একটার সময় তার নিয়োগকৃত ট্রাক্টর চালক মোঃ সজল মিয়া দামোদরদী গ্রামের জনৈক আলম সরদারের জমি চাষাবাদ করার সময় অসাবধানতা বশত ট্রাক্টরের একটি চাকা পাশ্ববর্তী রোপনকৃত পাটের জমিতে প্রবেশ করলে এজাহারে উল্লিখিত ১ নং আসামী দামোদরদী গ্রামের হাবিব সরদারের পুত্র মোঃ সাহান তাৎক্ষণিক ট্রাক্টরের মালিক রোকনুজ্জামানকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মেরে জামা কাপড় ছিঁড়ে ফেললে ঘটনার সূত্রপাত হয়। পরবর্তীতে বেলা অনুমানিক দুইটার সময় রোকনুজ্জামান তার শ্যালক মোঃ হোসেন মোল্যা, ট্রাক্টরের ড্রাইভার মোঃ সজল মিয়া ও প্রতিবেশী ভাজিতা মোঃ হুমায়ন মিয়াকে সাথে নিয়ে ১ নং বিবাদীর পিতার নিকট বিচার চাইলে হাবিব সরদারের পুত্র রাসেল (৩৫), রাজিব (২৮) ও ইমরান (২৫) উপস্থিত ব্যক্তিদের উপর হাবিব সরদারের নির্দেশে অতর্কিতভাবে এলোপাতাড়ি মারপিট করে গুরুত্বর আহত করে। ১ নং বিবাদী মোঃ সাহান তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে রোকনুজ্জামানের শ্যালক মোঃ হোসেন মোল্যার মাথা লক্ষ্য করে আঘাত করলে গুরুত্বর রক্তাক্ত জখম হয়। আহত রোগীদের মধুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় মোঃ হোসেন মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়। 


এ বিষয়ে মধুখালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ০১, তারিখ- ০১.০৪.২০২১ ইং। মামলায় মোট ৫ ( পাঁচ)জনকে আসামী করা হলেও অদ্যবধি কোন আসামী গ্রেফতার হয় নাই। অর্থ সম্পদ ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার পাশাপাশি একাধিক ব্যক্তি গুরুত্বর জখম থাকার পরও মামলার আসামী গ্রেফতার না হওয়ায় এলাকায় অসন্তোষ বিরাজ করছে। 



No comments:

Post a Comment