Breaking

Tuesday, July 23, 2019

ফরিদপুরে আ.লীগের ৭০ বছর পূর্তির সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন

এএফ ডেস্ক/ফরিদপুর
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেছেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আরও পাঁচ বার ক্ষমতায় রাখতে হবে। 

ফরিদপুরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন তিনি। সংগ্রামে ও অর্জনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গৌরবময় পথচলার ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে মাসব্যাপী কর্মসূচির সমাপনী উপলক্ষে এ আলোচন সভা ও সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে প্রথমে আলোচনা সভা ও পরে সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় শহরতলীর বদরপুরস্থ আহসান মঞ্জিলের সবুজ চত্ত্বরে। বাংলাদেশ আ.লীগ ফরিদপুর জেলা শাখা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মোশাররফ বলেন, আ.লীগ ক্ষমতায় আছে বলে দেশে আজ অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। ফরিদপুরসহ সারাদেশের যে দিকে তাকাবেন চোখে পড়বে উন্নয়ন আর উন্নয়ন। তিনি বলেন, এত বড় বড় ভবন হয়েছে এ সরকারের সময়ে তা সম্ভব হয়েছে দেশের শান্তি বজায় রাখা ও চাঁদাবাজী বন্ধ করার করনে। বিগত বিএনপি সরকারের সমোলচনা করে খন্দকার মোশরারফ বলেন, ওই সময় কোন উন্নয়ন হয়নি। হয়েছে লুটপাট। তিনি বলেন, দেশের এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হলে শেখ হাসিনার উপর অবিচল আস্থা রেখে আগামীতে আরও পাঁচবার আ.লীগ সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে হবে। তাহলে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ একটি উন্নত দেশে পরিণত হওয়া কোন বাধা থাকবে না। 
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ ও সিরাজগঞ্জ জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবে মিল্লাত। সভাপতিত্ব করেন জেলা আ.লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা।
অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঝর্না হাসান, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক মোল্লা, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক এ এইচ এম ফোয়াদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শওকত আলী, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আক্কাস হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিশান মাহমুদ প্রমুখ।
এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. লোকমান হোসেন মৃধা, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী, প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. ইমতিয়াজ হাসান রুবেল।
আলোচনা সভা শেষে সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও ভারতের খ্যাতিমান শিল্পীবৃন্দ অংশ নেন।

No comments:

Post a Comment